সবজির দাম বাড়ছেই, মুরগির বাজারও চড়া

সবজির দাম বাড়ছেই, মুরগির বাজারও চড়া

সবজির দাম বাড়ছেই, মুরগির বাজারও চড়া

মাসখানেক ধরে বাজারে মুরগির দাম বেড়েই চলেছে। সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজি মুরগির দাম আরও ২০টাকা বেড়েছে। অন্যদিকে সবজিসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজারও চড়া।

সরেজমিনে বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগিসহ সব মুরগিতে দাম বেড়েছে ২০ টাকা। প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৯০ টাকা। যা গত সপ্তাহে ১৭০ টাকা। সোনালি মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৪০ টাকা, যা গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছে ৩২০ থেকে ৩৩০ টাকা। লেয়ার মুরগি প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৫০ টাকা। যা গত সপ্তাহে ২৩০ টাকা।

এদিকে বাজারে মুরগির সঙ্গে পাল্লাদিয়ে বেড়েছে সবজির দামও। বেশির ভাগ সবজির দাম কেজিতে বেড়েছে ১০ থেকে ১৫ টাকা। গোল আলু (সাদা) ২০ টাকা, লাল ৩০ টাকা প্রতি কেজি। দেশি পেঁয়াজ কেজি ৬৫ থেকে ৭০ টাকা। ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়। বাজারে প্রতিকেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকা, সাদা বেগুন ৮০ টাকা, কালো বেগুন (লম্বা) ৬০ টাকা, ফুল কফি প্রতি পিস ৫০ থেকে ৬০ টাকা, করলা (ভালো) ৬০ টাকা (নরমাল ৪০) টাকা, টমেটো ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা, বরবটি ৯০ থেকে ১০০ টাকা।

এছাড়া গাজর প্রতি কেজি ১৪০ টাকা, চাল কুমড়া পিস ৩০ টাকা, প্রতি পিস লাউ আকারভেদে বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৬০ টাকা, মিষ্টি কুমড়ার কেজি ৪০ টাকা, চিচিঙ্গা ৬০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, ঢেঁড়স ৬০ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা, কাকরোল ৫০ টাকা, মুলা ৬০ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা ও পেঁপের কেজি ৩০ টাকা।

এছাড়াও বাজারে প্রতিকেজি কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকায়। কাঁচা কলার হালি বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকায়। শসা বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা। লেবুর হালি বিক্রি হচ্ছে ১৫ টাকায়। রসুনের কেজি ৮০ থেকে ১৩০ টাকা, দেশি আদা ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি, চায়না আদা ১৬০ টাকা।

সবজির দাম বৃদ্ধির ব্যাপারে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বললে ধাপে ধাপে এত দাম বাড়ার কারণ সম্পর্কে সঠিক কোনো তথ্য তারা জানেন না বলে জানান। তবে বেশি দামে কেনার কারণে বেশি দামে বিক্রি করা লাগছে বলে দাবি তাদের।

এদিকে বাজারে অপরিবর্তিত রয়েছে ডিমের দাম। লাল ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকা, হাঁসের ডিমের ডজন ১৬০ থেকে ১৬৫ টাকা। সোনালী (কক) মুরগির ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৭০ টাকা।

চাঁদপুর টুডে/এফএস
পাঠকের মন্তব্য