রোজার মধ্যেও হাজীগঞ্জে কৃষকের ধান কেটে দিলো জয় বাংলা স্কোয়াড সেচ্ছাসেবককর্মীরা

রোজার মধ্যেও হাজীগঞ্জে কৃষকের ধান কেটে দিলো জয় বাংলা স্কোয়াড সেচ্ছাসেবককর্মীরা

রোজার মধ্যেও হাজীগঞ্জে কৃষকের ধান কেটে দিলো জয় বাংলা স্কোয়াড সেচ্ছাসেবককর্মীরা

শুধুমাত্র ফটোসেশনই নয়, প্রকৃত অর্থেই অসহায় কৃষকের পাশে দাঁড়িয়েছে হাজীগঞ্জ  উপজেলার ৯ নং গন্ধর্ব্যপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ ও জয় বাংলা স্কোয়াড সেচ্ছাসেবককর্মীরা । রোজা রেখেও কৃষকের ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছে অত্র ইউনিয়নের দুই অঙ্গসংগঠন। আর সবকিছুর তত্ত্বাবধানে ছিলেন, ৯ নং গন্ধর্ব্যপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জয় বাংলা স্কোয়াড এর সমন্বয়ক আ. রাজ্জাক ভূঁইয়া।

করোনার কারণে সব কিছু বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে একে তো শ্রমিক পাওয়া দুষ্কর হয়ে উঠেছে, অন্যদিকে অনেক কৃষক পড়ে গেছেন চরম আর্থিক সঙ্কটে। ফলে জমিতে বোরো মৌসুমের ধান পেকে যাওয়ার পরও সেই ধান ঘরে তুলতে পারছেন না সেই অসহায় কৃষকরা।

বোরো মৌসুমে শ্রমিকের অভাবে যেন কৃষকের ধান জমিতে পড়ে না থাকে সে জন্য সারা দেশের প্রশাসনের সঙ্গে আওয়ামীলীগ ও এর অঙ্গসংগঠনকে কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মূলতঃ এ কারণেই নিজ এলাকার অসহায় কৃষকদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে উপজেলার ৯ নং গন্ধর্ব্যপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ ও জয় বাংলা স্কোয়াড সেচ্ছাসেবককর্মীরা।

বৃহস্পতিবার ১৪ মে, ৯ নং গন্ধর্ব্যপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জয় বাংলা স্কোয়াড এর সমন্বয়ক আ. রাজ্জাক ভূঁইয়ার দিক নির্দেশনায় ও স্বেচ্ছাসেবকদের পক্ষে মো. আ. করিম ভূঁইয়া ও ছাত্রনেতা মো: সুমনের নের্তৃত্বে  ইউনিয়ন ছাত্রলীগ ও জয় বাংলা স্কোয়াড সেচ্ছাসেবককর্মীরা একজন কৃষকের প্রায় ৩০ শতাংশ জমির ধান কেটে তাদের বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে আসে। ক্ষেত্রবিশেষে কৃষকের ধান মাড়াইও করে দিয়েছে তারা।

৯ নং গন্ধর্ব্যপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জয় বাংলা স্কোয়াড এর সমন্বয়ক আ. রাজ্জাক ভূঁইয়া জানিয়েছিলেন, তার ইউনিয়নে অসহায় কৃষকদের ধান বাড়িতে না ওঠা পর্যন্ত ইউনিয়ন ছাত্রলীগ ও জয় বাংলা স্কোয়াড সেচ্ছাসেবককর্মীরা মাঠে থাকবে। যেখানেই যার প্রয়োজন, সেখানেই তাকে সহযোগিতা করতে প্রস্তুত তারা।

তিনি আরো বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন অসহায় কৃষকের পাশে দাঁড়ানোর জন্য। জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা এবং বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয়ের পাওয়ার সেলের ডিজি ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ হোসাইন এর সহযোগিতা এবং প্রত্যক্ষ তত্বাবধানে আমরা নিজেদের এলাকায় অসহায় কৃষকের পাশে দাঁড়াচ্ছি। এখনও অনেক কৃষকের পাকা ধান জমিতে রয়েছে। প্রকৃত গরীব-অসহায় কৃষকদের ধান ঘরে না ওঠা পর্যন্ত আমরা তাদের পাশে থেকে এই কার্যক্রম চালিয়ে যাবো।

ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জয় বাংলা স্কোয়াড এর সমন্বয়ক আ. রাজ্জাক ভূঁইয়ার দিক নির্দেশনায় ও স্বেচ্ছাসেবকদের পক্ষে মো. আ. করিম ভূঁইয়া ও ছাত্রনেতা মো: সুমনের নের্তৃত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন, মো. ফিরোজ মিজি, মো. আবু সাঈদ জয়, মো. তানবীর, মো. মোরসালীন, মো. শাহাদাৎ, আশিক,  মেহেদী সহ আরো অনেকেই।

উল্লেখ্য- জয় বাংলা স্কোয়াড-হাজীগঞ্জ উপজেলার ৯নং গন্ধর্ব্যপুর(উঃ) ইউনিয়ন এর সমন্বয়ক আ. রাজ্জাক ভূঁইয়ার অর্থায়নে এবং সহযোদ্ধা স্বেচ্ছাসেবক মো. ফিরোজ মিজে কে সাথে নিয়ে কয়েকটি পরিবারকে এক সপ্তাহের নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য দ্রব্য ও ইফতার সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন। এ ছাড়াও সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে আমাদের জয় বাংলা স্কোয়াড পরিবার চেষ্টা করে যাচ্ছে বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য।

পাঠকের মন্তব্য