স্বেচ্ছাসেবী প্ল্যাটফর্ম "জয় বাংলা স্কোয়াড"র কার্যক্রম অব্যাহত

স্বেচ্ছাসেবী প্ল্যাটফর্ম

স্বেচ্ছাসেবী প্ল্যাটফর্ম "জয় বাংলা স্কোয়াড"র কার্যক্রম অব্যাহত

বিশ্বব্যাপী চলমান করোনা সংকট মোকাবিলায় একেবারে শুরু থেকেই মাঠপর্যায়ে সক্রিয় ছিল স্বেচ্ছাসেবী প্ল্যাটফর্ম "জয় বাংলা স্কোয়াড" । সারাদেশে লকডাউনে প্রায় ১০ হাজারেরও অধিক সংখ্যক ব্যক্তি স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করেছেন এবং এখনো সহস্রাধিক সংখ্যক কাজ করে যাচ্ছেন এই টিমে।প্রায় সব ধরনের শ্রেনী-পেশার পুরুষ এবং নারীরাই যুক্ত ছিলেন এই উদ্যোমী-সাহসী সংগঠনটির সাথে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে। উল্লেখ্য লকডাউনে সারাদেশের ২৩ জেলার ৪৭ উপজেলাতে কার্যক্রম চালিয়েছিল সংগঠনটি । ধারারাবাহিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে করোনা পরিস্থিতিতে স্বেচ্ছাসেবী প্ল্যাটফর্ম হিসেবে পরিচিতি পাওয়া "জয় বাংলা স্কোয়াড'-এর নকলা উপজেলা (নেত্রকোনা) -এর স্বেচ্ছাসেবীদের পক্ষ থেকে নকলা হাসপাতালে -এ ৭ সদস্য বিশিষ্ট ১ টি টীম গিয়ে গত ৮ আগস্ট হাসপাতাল চত্ত্বরের প্রতিটি অংশে জীবানু নাশক স্প্রে করে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে র্টিকেট, ওষুধ বিতরণে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করে। এসময় একজন ডাক্তারের যোগসাজেশে কয়েকজন অসাধু কর্মচারীর টিকিট বিক্রিতে অনিয়ম-দুর্নীতি আর ওষুধ বিক্রির অভিযোগ পেলে স্কোয়াডের সদস্যরা হাতেনাতে ধরে ফেলে কয়েকজনকে বেশ কয়েকজন সাধারণ ভুক্তভোগী রোগীর অভিযোগ পেয়ে। জানা যায়, সেই ডাক্তারের উদাসীনতার সুযোগ নিয়ে কর্মচারীরা এই কাজটি করে যাচ্ছিল। অভিযুক্ত ডাক্তারের নাম ডাঃ মালিহা। এরপর স্কোয়াডের কর্মীরা তখন হাসপাতালের প্রধান ডাঃ মুজিবর রহমান-কে বিষটি জানান এবং অভিযুক্ত সকলকে উনার কাছে নিয়ে যান এবং উনার কাছে তাদেরকে হস্তান্তর করলে, প্রাথমিক ভাবে প্রথম বারের মতো ডাক্তারকে সতর্ক করে দেয়া হয় এবং অন্যান্য অভিযুক্তদের বিষয়ে তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেবার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। তবে অভিযুক্ত ডাক্তারকে সর্তক করে ছেড়ে দেওয়া হলেও বলা হয় পরবর্তী সময় এ ধরনের দূর্নীতি ও অপরাধ মূলক কাজ করলে আইন গত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এমনটিই জানান হাসপাতালের প্রধান ডাঃমুজিবর রহমান স্যার। এ সময় জয় বাংলা স্কোয়াড এর পক্ষ থেকে এ কে এম মেহেদী হাসান ডাঃ মুজিবর রহমান-এর সাথে স্বেচ্ছাসেবকদের সাথে নিয়ে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন আর যে কোনো পরিস্থিতিতে প্রয়োজনে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবেকাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন । জয় বাংলা স্কোয়াড- নকলা উপজেলা শাখার পক্ষ থেকে দুপুরের খাবার তুলনামূলক স্বল্প সামর্থ্যের বেশ কিছু রোগীদের হাতে তুলে দেন তারা। এসময় উপহার হিসেবে হাসপাতালের প্রধান ডাঃ মুজিবর রহমানকে শুভেচ্ছা হিসেবে খাবার প্রদান করতে চাইলে তিনি সানন্দ্যে গ্রহণ করেন এবং জয় বাংলা স্কোয়াডের দলটির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর পাশাপাশি প্রয়োজনে সহযোগিতার আশ্বাসও দেন। স্কোয়াডের উপজেলা সমন্বয়ক এ কে এম মেহেদী হাসানের সাথে সার্বিক কার্যক্রমে অংশ নেন ভলান্টিয়ার কামরুন্নাহার লিপি,মোছাঃশিলা আক্তার, জেলকত হোসেন রিংকন,সরকার জি. এ হাসান বসরী,জহিরুল ইসলাম,মোঃমোবারক হোসেন-সহ আরো অনেকে।
পাঠকের মন্তব্য