হাইমচরে জমিন সংক্রান্ত বিরোধে নিরীহ পরিবারর উপর হামলায়

হাইমচরে জমিন সংক্রান্ত বিরোধে নিরীহ পরিবারর উপর হামলায়

হাইমচরে জমিন সংক্রান্ত বিরোধে নিরীহ পরিবারর উপর হামলায়

হাইমচর প্রতিনিধি

হাইমচর উপজলার ২নং আলগী উত্তর ইউনিয়নের কমলাপুর গ্রামে জমিন সংক্রান্ত বিরাধ নিরীহ পরিবারর উপর হামলায় একই পরিবারের ২জন আহত হয়েছেন। আহতরা চাঁদপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। ঘটনাকে কেন্দ্র করে লুৎফুর রহমান গাজির স্ত্রী ফাহিমা বেগম বাদী হয়ে ভাশুর হাবিবুর রহমান গাজিসহ ৩ জনের বিরুদ্ধ হাইমচর থানায় অভিযাগ দায়ের করেন।

অভিযাগ সুত্র জানাযায়, মৃত লুৎফর রহমান গাজির স্ত্রী ফাতমা বেগমের সাথে তার ভাশুর হাবিবুর রহমান গাজির দীর্ঘদিন যাবত জায়গা নিয়ে বিরাধ চলে আসছিল।

গত ২৫ নভেম্বর বুধবার সকাল ৮টায় হাবিবুর রহমান গাজি ফাতমা বেগমর জমিন থেকে জোরপূর্বক মাটি কেটে তার পুকুরের পাড় বাঁধ নির্মান করেন। মাটি কেটে নেয়ার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করতে গেলে হাবিবুর রহমান গাজি, তার ছেলে মাস্তাফিজুর রহমান ও হাজরা বেগম দা’ ছেনি ও দশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে তাদর উপর হামলা করেন। তাদের হামলায় ফাতেমা বেগম, তার ছেলে শাহাদাত হাসান ও ফরিদ আহম্মদ গাজি মারাত্মক ভাবে আহত হন। আহতদের কে স্থানীয় লোকজন হাইমচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্স নিয়ে আসেন। তাদের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত ডা. তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন। আহতদের মধ্যে ফাতেমা বেগমের ছেলে শাহাদাত হাসান আশংকাজনক অবস্থায় রয়েছেন।

ফাতেমা বেগম জানান, আমি বাড়িত না থাকায় হাবিবুর রহমান গাজি আমার নিজের জমিন থেকে মাটি কেটে নিয়ে যায়। আমি বাড়িতে এসে জিজ্ঞাসা করায় তারা আমার উপর আতকির্ত ভাবে হামলা চালায়। তাদের হামলায় আমি ও আমার ছেলে সহ ৩ জন গুরুতর আহত হই। আমার স্বামী জীবিত না থাকার সুযোগে তারা আমাকে ও আমার ছেলে কে বিভিন্ন সময় অহেতুক ভাবে হয়রানি করে আসছে। আমার অনেক জমিন জোর পূর্বক ভাবে ভোগ করে আসছে তারা। আবার নতুন করে অবশিষ্ট জমিনটুকু দখল করার উদ্দেশ্যে মাটি কেটে নিয়ে গেছে। বর্তমানে হাবিবুর রহমান গাজি আমাকে এবং আমার ছেলে কে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছে। আমি প্রশাসনের কাছ সুষ্ঠ বিচারের দাবী জানিয়ে অভিযাগ দায়ের করছি।

পাঠকের মন্তব্য